ধরিত্রী দিবস: পৃথিবীর জন্য একদিন

ধরিত্রী দিবস - কুইজার্ডস

প্রতি বছর এপ্রিলের ২২ তারিখ বিশ্বব্যাপী উদযাপিত হয় ধরিত্রী দিবস। এ দিবসের উদ্দেশ্য হলো পরিবেশ রক্ষার জন্য জনসমর্থন বাড়ানো। বর্তমানে “Earth Day Network” বা ইডিএন নামের একটি অলাভজনক সংস্থার সমন্বয়ে বিশ্বের প্রায় ১৯২ টি দেশে দিনটি পালন করা হয়।

আজ আমরা খুব সংক্ষেপে জেনে নেবো ধরিত্রী দিবসের ইতিহাস। এছাড়া কুইজার্ডসের পক্ষ থেকে একটা ফ্রি ই-পোস্টারও তৈরি করা হয়েছে। পোস্টারটি যে কেউ ডাউনলোড করে নিতে পারবেন এখান থেকে অথবা নিচের ছবিতে ক্লিক করে।

ধরিত্রী দিবস: যেভাবে এলো

বিংশ শতাব্দীর ষাটের দশকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রর রাজনৈতিক অঙ্গনে বড় ধরনের পরিবর্তন আসা শুরু করেছিলো। সে সময় ভিয়েতনাম যুদ্ধের মতো ঘটনা নাড়া দিয়েছিলো আমেরিকার জনগণকে। দেশটির বিভিন্ন জায়গায় গড়ে উঠেছিলো যুদ্ধবিরোধী আন্দোলন। সাথে অন্যান্য সামাজিক বিষয়েও সচেতনতা তৈরি হচ্ছিলো মানুষের মধ্যে। ফলশ্রুতিতে রাজনীতিতে জনমতের গুরুত্ব ক্রমেই বাড়ছিলো। তবে পরিবেশ বিষয়ে তখনো খুব একটা আলোচনা ছিলো না।

১৯৬২ সালে একজন মানুষের লেখা বদলে দেয় পুরো প্রেক্ষাপট। তিনি হলেন র‍্যাচেল কার্সন। তাঁর “Silent Spring” নামের বইয়ে তিনি পরিবেশের উপর কীটনাশকের ক্ষতিকর প্রভাব বিস্তারিতভাবে তুলে ধরেন। তুমুল আলোড়ন তোলে বইটি। জন্ম নেয় আধুনিক পরিবেশ আন্দোলনের। এর কয়েক বছর পর আসে একটি নির্দিষ্ট দিনকে পরিবেশের জন্য রাখার পরিকল্পনা।

ষাটের দশকে ক্যাম্পাসভিত্তিক বিভিন্ন আন্দোলন দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন উইসকনসিনের সিনেটর গেলর্ড নেলসন। ১৯৬৯ সালে তিনিই প্রথমবারের মতো ধরিত্রী দিবস উদযাপনের প্রস্তাব দেন। তাঁর প্রাথমিক উদ্দেশ্য ছিলো জাতীয় রাজনৈতিক নেতৃত্বকে দেখানো যে পরিবেশ আন্দোলনের প্রতি জনগণের ব্যাপক ও গভীর সমর্থন রয়েছে। তবে জনাব নেলসন কোন সংস্থার মাধ্যমে দিবসটি আয়োজন করাতে চান নি। বরং তাঁর ইচ্ছা ছিলো তৃণমূল পর্যায়ে সাধারণ মানুষের অংশগ্রহণকে উৎসাহিত করা। কল্পনাতীতভাবে এ ইচ্ছা বাস্তবায়িত হয়েছিলো।

কয়েকজন শিক্ষার্থীর সহায়তায় ১৯৭০ সালের ২২ এপ্রিল আয়োজন করা হয় প্রথম ধরিত্রী দিবস। প্রায় ২২ মিলিয়ন (২ কোটি ২০ লক্ষ) মানুষ দিনটি উদযাপন করেছিলো। তবে এখানেই থেমে যায় নি এ ঘটনা। ধরিত্রী দিবস বড় ধরনের প্রভাব ফেলেছিলো জাতীয় নীতিনির্ধারণী পর্যায়েও।

  • পরিবেশ রক্ষার গুরুত্ব অনুধাবন করে ১৯৭০ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের “Environmental Protection Agency” বা ইপিএ।
  • ১৯৭০ সালে বায়ুদূষণ প্রতিরোধের আইন “Clean Air Act” সংশোধিত হয়। বাতাসে ক্ষতিকর নিঃসরণ ঠেকানোর জন্য নতুন মানদণ্ড অন্তর্ভুক্ত করা হয় এ সংশোধনীতে।
  • ১৯৭২ সালে মার্কিন কংগ্রেসে পাশ করা হয় “Clean Water Act”, যা দেশটির পানিদূষণ রোধে প্রাথমিক ফেডারেল আইন হিসাবে ব্যবহৃত হয়।
  • ১৯৭৪ সালে “Safe Drinking Water Act” পাশ করা হয়। জনগণের জন্য নিরাপদ খাবার পানি নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে এটি মূল ফেডারেল আইন।
  • ১৯৭৬ সাল থেকে “Resource Conservation and Recovery Act” কার্যকর হয়। এ আইনটি ক্ষতিকর বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় মূল ফেডারেল আইনের ভূমিকা করে। একই বছর “Toxic Substances Control Act” নামের আইনে প্রেসিডেন্ট জেরাল্ড ফোর্ড স্বাক্ষর করেন। খাদ্য, ঔষধ, কসমেটিকস ও কীটনাশকে রাসায়নিক দ্রব্যের মাত্রা নিয়ন্ত্রণের জন্য আইনটি চালু করা হয়।

প্রথম দিকে শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সীমিত থাকলেও পরবর্তীতে ধরিত্রী দিবসের ধারণা ছড়িয়ে পড়ে অন্য দেশেও। ১৯৯০ সাল থেকে সারা বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে উদযাপিত হয়ে আসছে বিশেষ এ দিনটি।

তথ্যসূত্র

১. আর্থ ডে নেটওয়ার্ক
২. ইপিএ
৩. নেলসন আর্থ ডে

ধরিত্রী দিবস: পোস্টার ডাউনলোড - কুইজার্ডস

Comments are closed.