করোনাভাইরাস ধরা না পড়া দেশ

করোনাভাইরাস ধরা না পড়া দেশ - কুইজার্ডস (Quizards)

এখন পর্যন্ত অন্তত তেরোটি দেশে করোনাভাইরাসের রোগী পাওয়া যায়নি। এর মধ্যে আছে বেশ কয়েকটি দ্বীপরাষ্ট্র, যেখানে জনবসতি খুবই কম। আছে যুদ্ধবিদ্ধস্ত এবং একনায়কতান্ত্রিক সরকার ব্যবস্থার কিছু দেশ। উল্লেখ্য যে, এটা নিশ্চিত করে বলা যাবে না যে এসব দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কেউ নেই। বরং বিভিন্ন কারণে হয়তো এখনো এ দেশগুলোতে কোন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। এমন ছয়টি দেশ নিয়ে আলোচনা করা হলো।

ইয়েমেন

২০১৫ সাল থেকে গৃহযুদ্ধ চলছে ইয়েমেনে। হুথি বিদ্রোহী আর সৌদি আরব সমর্থিত ইয়েমেনি সেনাবাহিনীর মধ্যে লড়াইতে মারা গেছে অজস্র মানুষ। পাশাপাশি চলছে সৌদি আরবসহ আরব দেশগুলোর বিমান হামলা।

জাতিসংঘের মতে দেশটিতে “নিকৃষ্টতম মানবিক সংকট” (Worst Humanitarian Crisis) বিরাজ করছে। দেশব্যাপী করোনাভাইরাস পরীক্ষা করার মতো অবস্থায় নেই দেশটি।

দক্ষিণ সুদান

সুদান থেকে ২০১১ সালে বিচ্ছিন্ন হয়ে স্বাধীনতা লাভ করে দক্ষিণ সুদান। আয়তনে আফ্রিকার বড় দেশগুলোর একটি। কিন্তু ২০১৩ সাল থেকে গৃহযুদ্ধ চলছে দেশটিতে।

সম্প্রতি, ফেব্রুয়ারি মাসে, দীর্ঘদিন ধরে লড়াইরত দুই পক্ষ ক্ষমতার ভাগাভাগির ব্যাপারে একমত হলেও দেশটির নাগরিকদের মৌলিক অধিকারের বিষয়গুলো এখনো উপেক্ষিত, যার অন্যতম হচ্ছে স্বাস্থ্য সেবা। পাশাপাশি দেশটিতে চলছে মানবসৃষ্ট দুর্ভিক্ষও।

তুর্কমেনিস্তান

মধ্য-এশিয়ার যে দুইটি দেশে এখনো করোনাভাইরাসের রোগী পাওয়া যায়নি তার একটি তুর্কমেনিস্তান। হিউম্যান রাইটস ওয়াচের মতে দেশটি “পৃথিবীর সবচেয়ে নিপীড়ক সরকারগুলোর একটি” দ্বারা শাসিত হয়ে আসছে। অবাধ তথ্যপ্রবাহ নিয়মিত বাঁধাগ্রস্ত হয় দেশটিতে।

উত্তর কোরিয়া

দেশটি চীনের প্রতিবেশী দেশ এবং ঘনিষ্ঠ মিত্র হলেও দেশটিতে করোনাভাইরাসের রোগী এখনো ধরা পড়েনি। অনেকেই এ জন্য দেশটির একনায়কতান্ত্রিক ব্যবস্থার সরকার ও অবাধ তথ্যপ্রবাহ না থাকার দিকে আঙুল তোলেন। তবে দেশটি জোর দিয়ে দাবী করছে যে, তারা করোনাভাইরাসের সংক্রমণের খবর আসতেই সীমান্তে কড়াকড়ি আরোপ করার ফলে তাদের দেশে করোনাভাইরাস ঢুকতেই পারেনি।

তাজিকিস্তান

সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পর দেশটি স্বাধীনতা লাভ করে, ১৯৯১ সালে। এরপর থেকে দেশটিতে প্রায় তিন দশক ধরে টানা ক্ষমতায় আছেন এমোমালি রহমান, রাষ্ট্রপতি হিসেবে।

এমোমালি রহমানের বিরুদ্ধে বিরুদ্ধমত দমনের অভিযোগ বেশ পুরনো এবং স্বাভাবিকভাবেই দেশটিতে অবাধ তথ্যপ্রবাহ বেশ ঝুঁকিতে থাকে সব সময়ই। তাই দেশটি সম্পর্কে কোন তথ্য পাওয়া বেশ কঠিন।

লেসোথো

দেশটি পুরোটাই দক্ষিণ আফ্রিকা দিয়ে ঘেরা। যদিও চীনের বেশ ভালো বিনিয়োগ আছে দেশটিতে, এখনো করোনাভাইরাস রোগী পাওয়া যায়নি সেখানে। অবশ্য দেশটির করোনাভাইরাস পরীক্ষার সক্ষমতাও নেই বলে জানা গেছে।

করোনাভাইরাস ধরা না পড়া দেশ - কুইজার্ডস (Quizards)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here