বর্ষবরণ দেশে দেশে

বর্ষবরণ দেশে দেশে - কুইজার্ডস (Quizards)

বাঙালির প্রাণের উৎসব বাংলা নববর্ষ। পহেলা বৈশাখে ধর্ম, বর্ণ, বয়স নির্বিশেষে আমরা নতুন বছরকে বরণ করে নিই। অন্যদিকে সারা বিশ্বে ১লা জানুয়ারি একসাথে পালন করা হয় ইংরেজি নববর্ষ। তবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন সংস্কৃতিতে নববর্ষকে উদযাপন করা হয় বিভিন্ন ভাবে, বিভিন্ন সময়ে। জানা যাক তেমন কিছু ভিন্ন বর্ষবরণের কথা।

১. লুনার বর্ষবরণঃ চীন

চীনা ক্যালেন্ডারকে বলা হয় লুনার ক্যালেন্ডার। লুনার ক্যালেন্ডারের প্রথম দিনটিতে চীনারা পালন করে নববর্ষ উৎসব। ১৫ দিন ধরে চলা এই উৎসব পৃথিবীর ইতিহাসে অন্যতম প্রাচীন বর্ষবরণ উৎসব। তবে মজার বিষয় প্রতিবছর একইদিনে চীনাদের নতুন বছর শুরু হয় না। এটি নির্ভর করে আকাশে চাঁদ দেখার উপর। ২০ জানুয়ারী থেকে ২১শে ফেব্রুয়ারির মধ্যে এই চাঁদ দেখা যায় । একে বলা হয়, ‘উয়ান ট্যান’। ২০১৮ সালে লুনার নতুন বছর শুরু হয় ১৬ই ফেব্রুয়ারি থেকে।
চীনাদের নববর্ষ আর বসন্ত দুটোর আগমন হয় একসাথে। এজন্য এই উৎসবকে ‘বসন্ত উৎসব’ও বলা হয়ে হয়ে থাকে। অন্যদিকে চন্দ্রবর্ষের শুরুর দিনটিকে নববর্ষ হিসেবে পালন করা হয় বলে এই উৎসবকে ‘চুন জি’ ও বলা হয়ে থাকে। ধারণা করা হয় চীনে এই উৎসবের প্রচলন শুরু হয় খ্রিষ্টপূর্ব ১৭৬৬ সালে শ্যাং ডাইনেস্টির সময় থেকে। তবে মতান্তরে এই উৎসবের শুরু আরও আগে, খ্রিস্টপূর্ব ২৩০০ সালের কোন এক সময় থেকে। ‘চীনা নববর্ষ’ গণচীনের একটি অন্যতম প্রধান উৎসব। তবে চীন ছাড়াও সিঙ্গাপুর, ইন্দোনেশিয়া, মালয়শিয়া, ফিলিপাইন, থাইল্যান্ড, কম্বোডিয়া, অস্ট্রেলিয়া এবং মরিশাসে এই উৎসব ব্যাপকভাবে পালিত হয়।

২. রোশ হাশানাহঃ ইসরাইল

ইহুদীদের বর্ষবরণ উৎসবকে বলা হয় রোশ হাশানাহ। হিব্রু শব্দ ‘রোশ হাশানাহ’ এর অর্থ ‘বছরের শুরু’। ইহুদীরা বিশ্বব্যাপী সেপ্টেম্বর থেকে অক্টোবরের মাঝামাঝি সময়ে এই উৎসব পালন করে। ইহুদী বছরের প্রথম মাস ‘তিশরেই’ (হিব্রু ক্যালেন্ডারের ৭ম মাস) এর প্রথম ২ দিন এই উৎসব পালন করা হয়। ইহুদীরা বিশ্বাস করে বছর শুরুর এই দিনেই মানবজাতির প্রথম পুরুষ আদম এবং প্রথম নারী হাওয়াকে সৃষ্টি করা হয়েছিল। মতান্তরে এই দিনকে ধরা হয় দক্ষিন-পশ্চিম এবং উত্তর-পূর্ব আফ্রিকার অর্থনৈতিক বছরের শুরু হিসেবে।
বর্ষবরণ উৎসবে ইহুদীদের একটি জনপ্রিয় ঐতিহ্য হল প্রার্থনার পর মধু মিশ্রিত আপেল খাওয়া। প্রাচীনকালে ইহুদীরা বিশ্বাস করত আপেলে রয়েছে রোগ নিরাময়কারী গুণাগুণ এবং মধুকে নতুন বছরের মিষ্টতার প্রতীক হিসেবে ধরা হত। কালের বিবর্তনে এই বিশ্বাসগুলোই ইহুদী বর্ষবরণের ঐতিহ্য হিসেবে প্রচলিত হয়ে গিয়েছে।

৩. নওরোজঃ ইরান

পার্সিয়ান শব্দ ‘নওরোজ’ এর অর্থ নতুন দিন। প্রায় তিন হাজার বছর ধরে ইরান ও মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি দেশে নববর্ষ উৎসব হিসেবে নওরোজ পালিত হয়ে আসছে। ‘নওরোজ’ মূলত ফার্সি বছরের প্রথম দিনে উদযাপন করা হয়। ইরানে উৎসবটির ব্যাপ্তিকাল মোট ১৩ দিন এবং আফগানিস্তানে ৩ দিন। এটি পৃথিবীর প্রাচীনতম উৎসবের একটি। অঞ্চলভেদে উৎসবটি ইংরেজি মার্চ মাসের ২১ তারিখে অথবা এর আগেরদিন কিংবা তারপরের দিন পালন করা হয়। নওরোজের মাধ্যমে ফার্সি বছরে বসন্তকালের আগমন ঘটে। ইরান এবং আফগানিস্তান ছাড়াও মধ্যপ্রাচ্য, মধ্য এশিয়া, ককেশাস, কৃষ্ণ সাগরীয় অঞ্চল এবং বলকান অঞ্চলের বেশ কিছু দেশে এই উৎসব পালন করা হয়। জাতিসংঘ ২০১০ সালে এই দিবসটিকে ‘আন্তর্জাতিক নওরোজ দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করেছে।

৪. তামিল নববর্ষঃ শ্রীলঙ্কা

বাংলা নববর্ষের মতোই এপ্রিলের ১৪ তারিখ তামিল নতুন বছরকে বরণ করে নেয় শ্রীলঙ্কানরা। কথিত আছে সূর্য দেবতার আরাধনার রীতি থেকেই তামিল নববর্ষ পালনের উৎপত্তি। তবে বর্তমানে শ্রীলঙ্কানরা সূর্য দেবতার মীন রাশি থেকে মেষ রাশিতে প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে এই উৎসব পালন করে থাকে। এপ্রিলের ১৪ তারিখ যখন সূর্য ঠিক মাথার উপর থাকে তখনই বর্ষবরণ উৎসব শুরু হয়। শ্রীলঙ্কানদের কাছে উৎসবটির আরেকটি তাৎপর্য হল এই উৎসবের মাধ্যমে নতুন ফসল ঘরে তোলার সমাপ্তি ঘটে যাকে সিংহলি ভাষায় বলা হয় ‘মহা কন্যা’।

৫. সংক্রানঃ থাইল্যান্ড

সংক্রান থাইল্যান্ডের একটি জাতীয় উৎসব যেখানে থাই নতুন বছরকে বরণ করে নেওয়া হয়। প্রতিবছর এপ্রিলের ১৩ তারিখ এই উৎসব পালন করা হয়। ধারণা করা হয় ‘সংক্রান’ নামটি ভারতের ‘মকর সংক্রান্তি’ উৎসব থেকে নেওয়া। জ্যোতিষবিদ্যা অনুযায়ী এই সময় মেষ রাশির সময়কাল শুরু হয়। উৎসবটির একটি মূল আকর্ষণ হল ‘পানি নিক্ষেপণ খেলা’। এই খেলার মাধ্যমে একে অন্যের গায়ে পানি নিক্ষেপ করে নতুন বছরে অধিক বৃষ্টির আশা করা হয়। এছাড়াও নতুন বছরে শুভকামনা এবং অগ্রগতির আশায় সকল বুদ্ধ মূর্তি ও বুদ্ধের ছবি ধুয়ে মুছে পরিষ্কার করাও উৎসবটির একটি উল্লেখযোগ্য অংশ।

Loading

USAID Logo - কুইজার্ডস (Quizards)

This article is made possible by the support of the American People through the United States Agency for International Development (USAID.) The contents of this article are the sole responsibility of the Quizards project and do not necessarily reflect the views of USAID or the United States Government.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Send this to a friend